সুরা ফাতিহা (৫-৭)

আমরা একমাত্র তোমারই ইবাদত করি (১-৫)

إِيَّاكَ نَعْبُدُ

উপাসনা করা,

ইবাদত করা

عَبَدَ-يَعْبُدُ-نَعْبُدُ

মূল শব্দ

এবং আমি এবাদতকারী নই, যার এবাদত তোমরা কর। (১০৯:)

وَلَا أَنَا عَابِدٌ مَّا عَبَدتُّمْ

উপাসনাকারী

عَابِدٌ (ج) عَابِدُونَ/عَابِدَاتٌ

সমার্থক শব্দ

তারা তাঁর বন্দেগীর ব্যাপারে অহঙ্কার করেন না :২০৬

لَا يَسْتَكْبِرُونَ عَنْ عِبَادَتِهِ

উপাসনা

عِبَادَةٌ

 

 

 

 

 

 

এবং শুধুমাত্র তোমারই সাহায্য প্রার্থনা করি। (১-৫)

وَإِيَّاكَ نَسْتَعِينُ

সাহায্য চাওয়া

اِسْتَعَانَ-يَسْتَعِينُ

মূল শব্দ

গতকল্য যে ব্যক্তি তাঁর সাহায্য চেয়েছিল  (২৮:১৮)

الَّذِي اسْتَنصَرَهُ بِالْأَمْسِ

সাহায্য কামনা করা

اِسْتَنْصَرَ

সমার্থক শব্দ

অতঃপর যে তাঁর নিজ দলের সে তাঁর শত্রু দলের লোকটির বিরুদ্ধে তাঁর কাছে সাহায্য প্রার্থনা করল। (২৮:১৫)

فَاسْتَغَاثَهُ الَّذِي مِن شِيعَتِهِ عَلَى الَّذِي مِنْ عَدُوِّهِ

সাহায্য চাওয়া

اسْتَغَاثَ

 

সে বিষয়ে একমাত্র আল্লাহই আমার সাহায্য স্থল। (১২:১৮)

وَاللَّهُ الْمُسْتَعَانُ عَلَىٰ مَا تَصِفُونَ

যার কাছে সাহায্য চাওয়া হয়

مُسْتَعَانٌ

 

এবং অন্য লোকেরা তাঁকে সাহায্য করেছে। (২৫.৪)

وَأَعَانَهُ عَلَيْهِ قَوْمٌ آخَرُونَ

সাহায্য করা

أَعَانَ-يُعِينُ

 

যদি আল্লাহ তোমাদের সহায়তা করেন, তাহলে কেউ তোমাদের উপর পরাক্রান্ত হতে পারবে না। (৩.১৬০)

إِن يَنصُرْكُمُ اللَّهُ فَلَا غَالِبَ لَكُمْ

সাহায্য করা

نَصَرَ-يَنْصُرُ

 

এবং তাঁকে সাহায্য ও সম্মান কর (৪৮.৯)

وَتُعَزِّرُوهُ وَتُوَقِّرُوهُ

সাহায্য করা

عَزَّرَ-يُعَزِّرُ

 

তখন আমি তাদেরকে শক্তিশালী করলাম তৃতীয় একজনের মাধ্যমে। (৩৬:১৪)

فَعَزَّزْنَا بِثَالِثٍ

শক্তিশালী করা

عَزَّزَ

 

এবং পবিত্র রূহের মাধ্যমে তাকে শক্তিদান করেছি।  (:৮৭)

وَأَيَّدْنَاهُ بِرُوحِ الْقُدُسِ

সাহায্য করা

أَيَّدَ-يُأَيِّدُ

 

তোমাদের সাহায্যার্থে তোমাদের পালনকর্তা আসমান থেকে অবতীর্ণ তিন হাজার ফেরেশতা পাঠাবেন। (:১২৪)   

أَن يُمِدَّكُمْ رَبُّكُم بِثَلَاثَةِ آلَافٍ مِّنَ الْمَلَائِكَةِ مُنزَلِينَ

সাহায্য করা

أَمَدَّ-يُمِدُّ

 

এবং তোমাদের বিরুদ্ধে কাউকে সাহায্যও করেনি  (৯.৪

وَلَمْ يُظَاهِرُوا عَلَيْكُمْ أَحَدًا

সাহায্য করা

ظَاهَرَ-يُظَاهِرُ

 

সৎকর্ম ও খোদাভীতিতে একে অন্যের সাহায্য কর।   (৫.২)

وَتَعَاوَنُوا عَلَى الْبِرِّ وَالتَّقْوَىٰ

পরস্পরে সাহায্য করা

تَعَاوَنَ-يَتَعَاوَنُ

 

তোমাদের কি হল যে, তোমরা একে অপরের সাহায্য করছ না? (৩৭.২৫)

مَا لَكُمْ لَا تَنَاصَرُونَ

পরস্পরে সাহায্য করা

تَنَاصَرَ-يَتَانَصَرُ

 

 

 

 

 

 

আমাদেরকে সরল পথ দেখাও (১-৬)

اهْدِنَا الصِّرَاطَ الْمُسْتَقِيمَ

পথপ্রদর্শন করা,

দিকনির্দেশনা দেওয়া

 

هَدَى-يَهْدِي-اِهْدِ

মূল শব্দ

আপনি তাদেরকে সুপথে আনতে আগ্রহী হলেও আল্লাহ যাকে বিপথগামী করেন তিনি তাকে পথ দেখান না  (১৬:৩৭)

إِن تَحْرِصْ عَلَىٰ هُدَاهُمْ فَإِنَّ اللَّهَ لَا يَهْدِي مَن يُضِلُّ

দিকনির্দেশনা

هُدًى

সমার্থক শব্দ

আমরা কখনও আমাদের পালনকর্তার সাথে কাউকে শরীক করব না।  (৭২:)

وَلَن نُّشْرِكَ بِرَبِّنَا أَحَدًا

 

رُشْدٌ

 

আমাদের জন্যে আমাদের কাজ সঠিকভাবে পূর্ণ করুন। (১৮.১০)

لَنَا مِنْ أَمْرِنَا رَشَدًاوَهَيِّئْ لَنَا مِنْ أَمْرِنَا رَشَدًا

সুষ্ঠ ভাবে

رَشَدٌ

 

আমি তোমাদেরকে সৎপথ প্রদর্শন করব। (৪০.৩৮)

أَهْدِكُمْ سَبِيلَ الرَّشَادِ

সঠিক

رَشَادٌ

 

আপনি অন্ধদেরকে তাদের পথভ্রষ্টতা থেকে ফিরিয়ে সৎপথে আনতে পারবেন না। (২৭.৮১)

وَمَا أَنتَ بِهَادِي الْعُمْيِ عَن ضَلَالَتِهِمْ

দিশারী, পথপ্রদর্শক

هَادٍ (الهَادِي

 

আপনি কখনও তার জন্যে পথপ্রদর্শনকারী ও সাহায্যকারী পাবেন না।  (১৮.১৭)

وَمَن يُضْلِلْ فَلَن تَجِدَ لَهُ وَلِيًّا مُّرْشِدًا

সাহায্যকারী

مُرْشِدٌ

 

তখন যদি তারা আত্নসমর্পণ করে, তবে সরল পথ প্রাপ্ত হলো, (৩:২০)

فَإِنْ أَسْلَمُوا فَقَدِ اهْتَدَوا

দিশা পাওয়া, পথনির্দেশ পাওয়া

اهْتَدَى-يَهْتَدِي (يَهِدِّي)

 

যাতে তারা সৎপথে আসতে পারে।  (২-১৮৬)

لَعَلَّهُمْ يَرْشُدُونَ

সুপথ অনুসরণ করা

رَشَدَ-يَرْشُدُ

 

ইনশাআল্লাহ এবার আমরা অবশ্যই পথপ্রাপ্ত হব (২-৭০)

وَإِنَّا إِن شَاءَ اللَّهُ لَمُهْتَدُونَ

দিশাপ্রাপ্ত, সুপথপ্রাপ্ত

مُهْتَدٍ (المُهْتَدِي) (ج) مُهْتَدُونَ

 

তারাই সৎপথ অবলম্বনকারী। ৪৯.৭

أُولَٰئِكَ هُمُ الرَّاشِدُونَ

সৎপথ অবলম্বনকারী

رَاشِدٌ (ج) رَاشِدُونَ

 

তোমাদের মধ্যে কি কোন ভাল মানুষ নেই। (১১:৭৮)

أَلَيْسَ مِنكُمْ رَجُلٌ رَّشِيدٌ

ভাল

رَشِيدٌ

 

ফেরআউন তার সম্প্রদায়কে বিভ্রান্ত করেছিল। (২০-৭৯)

 وَأَضَلَّ فِرْعَوْنُ قَوْمَهُ

বিভ্রান্ত

أَضَلَّ-يُضِلُّ

বিপরীতার্থক শব্দ

আমি অবশ্যই তাদের সবাইকে বিপথগামী করে দেব। (৩৮-৮২)

لَأُغْوِيَنَّهُمْ أَجْمَعِينَ

বিপথগামী

أَغْوَى-يُغْوِي

 

তিনি কি তাদের চক্রান্ত নস্যাৎ করে দেননি? (১০৫-২) 

أَلَمْ يَجْعَلْ كَيْدَهُمْ فِي تَضْلِيلٍ

নস্যাৎ

تَضْلِيلٌ

 

(৩:১৬৪)

 

 

ضَلاَل

 

আপনি অন্ধদেরকে তাদের পথভ্রষ্টতা থেকে ফিরিয়ে সৎপথে আনতে পারবেন না (২৭-৮১) 

وَمَا أَنتَ بِهَادِي الْعُمْيِ عَن ضَلَالَتِهِمْ

পথভ্রষ্ট

ضَلاَلَةٌ

 

আর আল্লাহ যাকে পথপ্রদর্শন করেন, তাকে পথভ্রষ্টকারী কেউ নেই। (৩৯-৩৭) 

وَمَن يَهْدِ اللَّهُ فَمَا لَهُ مِن مُّضِلٍّ

পথভ্রষ্টকারী

مُضِلٌّ (ج) مُضِلُّونَ

 

তোমাদের সংগী পথভ্রষ্ট হননি এবং বিপথগামীও হননি। (৫৩-২)

مَا ضَلَّ صَاحِبُكُمْ وَمَا غَوَىٰ

পথভ্রষ্ট

ضَلَّ-يَضِلُّ

 

তোমাদের সংগী পথভ্রষ্ট হননি এবং বিপথগামীও হননি। (৫৩-২)

مَا ضَلَّ صَاحِبُكُمْ وَمَا غَوَىٰ

বিপথগামী

غَوَى-يَغْوِي

 

তখন বললঃ আমরা তো পথ ভূলে গেছি।  (৬৮:২৬)

 قَالُوا إِنَّا لَضَالُّونَ

পথভ্রষ্ট

ضَالٌّ (ج) ضَالُّونَ

 

 

 

 

 

 

সরল পথ (-)

الصِّرَاطَ الْمُسْتَقِيمَ

রাস্তা

صِرَاط

মূল শব্দ

তাদের জন্যে সমুদ্রে শুষ্কপথ নির্মাণ কর। (২০:৭৭)

لَهُمْ طَرِيقًا فِي الْبَحْرِ

পথ

طَرِيق

সমার্থক শব্দ

জনপদটি সোজা পথে অবস্থিত রয়েছে। (১৫:৭৬)

وَإِنَّهَا لَبِسَبِيلٍ مُّقِيمٍ

পথ

سَبِيل

 

এবং সর্বপ্রকার কৃশকায় উটের পিঠে সওয়ার হয়ে দূর রান্ত থেকে-দূ (২২:২৭)

وَعَلَىٰ كُلِّ ضَامِرٍ يَأْتِينَ مِن كُلِّ فَجٍّ عَمِيقٍ

পথ

فَجّ

 

অতঃপর তিনি এক উপায় অবলম্বন করলেন।

 (১৮:৮৯)

ثُمَّ أَتْبَعَ سَبَبًا

পথ

سَبَب

 

বস্তুতঃ আমি তাকে দুটি পথ প্রদর্শন করেছি। (৯০:১০)

وَهَدَيْنَاهُ النَّجْدَيْنِ

পথ

نَجْد

 

উভয় বস্তি প্রকাশ্য রাস্তার উপর অবস্থিত। (১৫:৭৯)

وَإِنَّهُمَا لَبِإِمَامٍ مُّبِينٍ

 

إِمَام

 

 আগুনে পৌছে পথের সন্ধান পাব। (২০:১০)

أَجِدُ عَلَى النَّارِ هُدًى

পথের সন্ধান

هُدًى

 

 

 

 

 

 

 

 

সোজা

مُسْتَقِيْم

মূল শব্দ

আশা করা যায় আমার পালনকর্তা আমাকে সরল পথ দেখাবেন। (২৮:২২)

عَسَىٰ رَبِّي أَن يَهْدِيَنِي سَوَاءَ السَّبِيلِ

সরল

سَوَاء

সমার্থক শব্দ

এবং সংগত কথা বলে।  (:)

وَلْيَقُولُوا قَوْلًا سَدِيدًا

সংগত

سَدِيد

 

 

 

 

 

 

সে সমস্ত লোকের পথ, যাদেরকে তুমি নেয়ামত দান করেছ। (১-৭)

صِرَاطَ الَّذِينَ أَنْعَمْتَ عَلَيْهِمْ

অনুগ্রহ করা, প্রাধান্য দেয়া

أَنْعَمَ

মূল শব্দ

এই রসূলগণ-আমি তাদের কাউকে কারো উপর মর্যাদা দিয়েছি।  (২:২৫৩)

تِلْكَ الرُّسُلُ فَضَّلْنَا بَعْضَهُمْ عَلَىٰ بَعْضٍ

মর্যাদা

فَضَّلَ-يُفَضِّلُ

সমার্থক শব্দ

আল্লাহ ঈমানদারদের উপর অনুগ্রহ করেছেন (৩-১৬৪) 

لَقَدْ مَنَّ اللَّهُ عَلَى الْمُؤْمِنِينَ

অনুগ্রহ করেছেন

مَنَّ-يَمُنُّ

 

তিনি আমার প্রতি অনুগ্রহ করেছেন। আমাকে জেল থেকে বের করেছেন (১২:১০০)

وَقَدْ أَحْسَنَ بِي إِذْ أَخْرَجَنِي مِنَ السِّجْنِ

অনুগ্রহ করেছেন

أَحْسَنَ-يُحْسِنُ

 

অতঃপর তিনি যখন তাকে নেয়ামত দান করেন (:8) 

ثُمَّ إِذَا خَوَّلَهُ نِعْمَةً مِّنْهُ

দান করা

خَوَّلَ

 

এবং যাদেরকে আমি পার্থিব জীবনে সুখ-স্বাচ্ছন্দ্য দিয়েছিলাম(২৩: ৩৩)

وَأَتْرَفْنَاهُمْ فِي الْحَيَاةِ الدُّنْيَا

স্বাচ্ছন্দ্য

أَتْرَفَ

 

এবং তিনিই ধনবান করেন ও সম্পদ দান করেন। (৫৩:৪৮)

وَأَنَّهُ هُوَ أَغْنَىٰ وَأَقْنَىٰ

ধনবান করেন

أَغْنَى

 

এবং তিনিই ধনবান করেন ও সম্পদ দান করেন। (৫৩:৪৮

وَأَنَّهُ هُوَ أَغْنَىٰ وَأَقْنَىٰ

সম্পদ দান করেন।

أَقْنَى

 

এবং একে অপরকে লানত করবে।(২৯:২৫)

وَيَلْعَنُ بَعْضُكُم بَعْضًا

অভিশাপ দেয়া

لَعَنَ-يَلْعَنُ

বিপরীতার্থক শব্দ

 

 

 

 

 

তাদের পথ নয়, যাদের প্রতি তোমার গজব নাযিল হয়েছে এবং যারা পথভ্রষ্ট হয়েছে। (-)

غَيْرِ الْمَغْضُوبِ عَلَيْهِمْ وَلَا الضَّالِّينَ

ব্যতীত

غَيْر

মূল শব্দ

তিনি ছাড়া মহা করুণাময় দয়ালু কেউ নেই। (:১৬৩)

لَّا إِلَٰهَ إِلَّا هُوَ الرَّحْمَٰنُ الرَّحِيمُ

ছাড়া/ব্যতী

إِلاَّ

সমার্থক শব্দ

যার জন্য তিনি ইচ্ছা করেন।(৪:৪৮)

مَا دُونَ ذَٰلِكَ لِمَن يَشَاءُ

ব্যতী

دُوْنَ

 

 অতএব, যারা এদের ছাড়া অন্যকে কামনা করে

فَمَنِ ابْتَغَىٰ وَرَاءَ ذَٰلِكَ

ব্যতী/পিছনে

وَرَاء

 

 

 

 

 

 

 

 

যাদের উপর গযব পড়েছে

مَغْضُوْبٌ (غَضِبَ-يَغْضَبُ)

মূল শব্দ

অভিশপ্ত অবস্থায় তাদেরকে যেখানেই পাওয়া যাবে (৩৩:৬১)

مَّلْعُونِينَ ۖ أَيْنَمَا ثُقِفُوا أُخِذُوا

অভিশপ্ত

مَلْعُون (ج) مَلْعُنُون

সমার্থক শব্দ

কোরআনে উল্লেখিত অভিশপ্ত বৃক্ষ(১৭:৬০)

وَالشَّجَرَةَ الْمَلْعُونَةَ فِي الْقُرْآنِ

অভিশপ্ত

مَلْعُونَة

 


sharmin.

Alhamdulillah.

reply

sharmin

Sura bakara eivabe pascina kano?

reply

আল কুরআনের ভাষা

এই সেকশনের কাজ চলছে। ইন শা আল্লাহ কিছুদিন পর পাবেন।

reply