নুন সাকিন পড়ার নিয়ম

 نْ পড়ার চারটি নিয়ম আছে,

১) نْ এর পরে ب আসলে  নুন-কে মিম দ্বারা পরিবর্তন করে গুন্নার সাথে পড়তে হয়।

اَنْبِيَاءُ

اَلِيْمٌ بِمَا

مِنْ بَعْدِ

 

 

 

 

কিছু আয়াতের উদাহরণ লক্ষ্য করি, 

صُمٌّ بُكْمٌ عُمْيٌ فَهُمْ لَا يَرْجِعُونَ

 

ثُمَّ أَنشَأْنَا مِنْ بَعْدِهِمْ قَرْنًا اٰخَرِينَ

 

إِنَّهُ عَلِيمٌ بِذَاتِ الصُّدُورِ

 

وَهُم مِّنْ بَعْدِ غَلَبِهِمْ سَيَغْلِبُونَ

 

وَقَتْلَهُمُ الْأَنْبِيَاءَ بِغَيْرِ حَقٍّ

 

ثُمَّ بَعَثْنَاكُم مِّنْ بَعْدِ مَوْتِكُمْ

 

 


২) ء ه ع ح غ خ  এই টি বর্নের আগে نْ  আসলে স্বাভাবিকভাবে পড়া হয়।

مِنْ خَوْفٍ

اَجْرٌ غَيْرٌ

وَانْحَرْ

مِنْ عَمَلٍ

مِنْهُمْ

كُفُوًا اَحَدٌ

 

 

 

 

 

 

 

কিছু আয়াতের উদাহরণ লক্ষ্য করি, 

إِنَّ اللَّهَ عِندَهُ أَجْرٌ عَظِيمٌ

 

وَلَم  يَكُن لَّهُ كُفُوًا أَحَدٌ    

 

فَلَهُمْ أَجْرٌ غَيْرُ مَمْنُونٍ

 

فَصَلِّ لِرَبِّكَ وَانْحَرْ

 

قَالَ فَاخْرُجْ مِنْهَا فَإِنَّكَ رَجِيمٌ

 

لَيْلَةُ الْقَدْرِ خَيْرٌ مِّنْ أَلْفِ شَهْرٍ

 

 


৩) ي و م ن ر ل এই টি বর্নের আগে  نْ আসলে তাশদিদ ধরে মিলিয়ে পড়া হয়। ر  এবং  ل   বাদে বাকীগুলোতে গুন্না হবে।  

كُنْ لَّهُ

مِنْ رَّبِّ

مِنْ نِّسَۤاءِ

رَسُوْلٌ مِّنْ

نَفْسٍ وَّمَا

مَنْ يَّشَۤاءُ

 

 

 

 

 

 

 

কিছু আয়াতের উদাহরণ লক্ষ্য করি, 

وَمَنْ يَّعْمَلْ مِثْقَالَ ذَرَّةٍ شَرًّا يَرَهُ

 

أَمْ لَكُمْ سُلْطَانٌ مُّبِينٌ

 

سَلَامٌ قَوْلًا مِّنْ رَّبٍّ رَّحِيمٍ

 

وَالْأَمْرُ يَوْمَئِذٍ لِّلَّهِ

 

وَخَلَقَ الْجَانَّ مِنْ مَّارِجٍ مِّنْ نَّارٍ

 

وَمَا لَكُم مِّن دُونِ اللَّهِ مِنْ وَلِيٍّ وَلَا نَصِيرٍ

 

فَسَلَامٌ لَّكَ مِنْ أَصْحَابِ الْيَمِينِ

 

وَاجْعَل لِّي مِنْ لَّدُنكَ سُلْطَانًا نَّصِيرًا

 

 

 

তবে শব্দের মাঝে نْ হলে এই নিয়ম প্রযোজ্য হবে না।   যেমন دُنْيَا দুনইয়া~ قِنْوَانٌ ক্বিনওয়া~নুন   

 

৪) ت ث ج د ذ ز     س ش ص ض ط ظ    ف ق ك  এই ১৫ টি বর্নের আগে نْ আসলে  “ন” কে একটু গোপন করে পড়তে হয়।

 

مِنْ شَرِّ

سَمٰوَاتٍ طِبَاقًا O

مِنْ قَبْلِكَ

نَارًا ذَاتَ

لِتُنْذِرَ

 

 

 

 

 

كُنْتُمْ

ضَلٰلٍ كَبِيْرٍ O

اُنْزِلَ

شَىْءٍ قَدِيْرٌ O

اَنْتُمْ

 

 

 

 

 

 

কিছু আয়াতের উদাহরণ লক্ষ্য করি, 

لِمَن شَاءَ مِنْكُمْ أَن يَسْتَقِيمَ

 

يَوْمًا لَّا تَجْزِي نَفْسٌ عَن نَّفْسٍ شَيْئًا

 

وَاسْأَلْ مَنْ أَرْسَلْنَا مِنْ قَبْلِكَ

 

أَوْ إِطْعَامٌ فِي يَوْمٍ ذِي مَسْغَبَةٍ

 

وَلَا أَنْتُمْ عَابِدُونَ مَا أَعْبُدُ

 

الَّذِي أَطْعَمَهُم مِّنْ جُوعٍ

 

 


Sabrin Jahan

গোপন গুন্নাহ ঠিক ভাবে উচ্চারন করতে পারি না।গুন্নাহ ঠিক মতো উচ্চারিত না হলে কি গুনাহ্ হয় বা অর্থের কোনো পরিবর্তন আসে কি?আর এখানে সাধারন ভাবে নুন সাকিন যেভাবে উচ্চারিত হয়(২নং নিয়মে)ও গোপন গুন্নাহে সাধারণ ভাবে উচ্চারিত নুন সাকিনে গুন্নাহ করলেই হয়(৪নং নিয়মে),,,এই দুইটা কি এটুকু পার্থক্য(তিলাওয়াত এর সময়)। এখানের তিলাওয়াত শুনতে গিয়ে আমার এমনি মনে হয়েছে,তাই জানতে চাচ্ছি।

reply

Admin

এই গুন্নাহ না করলে গুনাহ নাই। তবে তিলাওয়াতের সৌন্দর্য নষ্ট হয়। ২ নং ও ৪ নং নিয়মের উচ্চারণে পার্থক্য আছে। আপনি বার বার শুনে প্রাকটিস করুন। ধন্যবাদ।

reply

শাকিব

গোপন গুন্নাহ্ গুলা অনেকটা ং এর মত হয় যেমন: لِتُنْذِرَ লিতুন এর ন গোপন হয়ে লিতুং হবে।

reply

জাকিয়া

মাশা আল্লাহ। এই কারীর কি আর কোন তিলাওয়াতের audio আছে কি? ওনার তিলাওয়াত অনেক সুন্দর।

reply

Admin

ji na nai

reply

waly

১নং এর ২ নং উদাহরণটি اَلِيْمٌ بِمَا তানবিনের পরে ''বা'' এসেছে, নিয়ম একই কিন্তু আপনারা তা উল্লেখ করেন নাই।

reply

Admin

তানয়ীন মানেই শেষে নুন সাকিন। এজন্য নুন সাকিনের জন্য নিয়ময়ের মধ্যে তা এসেছে। জাঝাকাল্লাহু খাইরান

reply

Mahmudul Hasan

এর সাথে সাথে প্রতিটির পূর্ণ পরিচয় দিলে আরো বেশি ভালো হতো।

reply

Admin

পরামর্শের জন্য ধন্যবাদ

reply

kabir

اَلِيْمٌ بِمَاএখানে তো نْনাই তাহলে কিভাবে হল আর মিম এর উপর চিহ্নকে কি বলা হয় এবংএর কাজ কি

reply

Admin

মিমের উপর তানয়ীন (দুই পেশ) আছে। তানয়ীন মানেই নুন সাকিন এ শেষ। যেমন আলিমুন...। মিমের উপর তানয়ীন।

reply

Humayon

ভাই كُفُوًا اَحَدٌ এখানে তো কোন বর্নের আগে নুন সাকিন নেই তাহলে বুঝবো কিভাবে

reply

Admin

তানয়ীনের শেষের নুন সাকিন।

reply

Moriam Akter

আসসালামু আআলাইকুম। আমার প্রশ্নটি হলো, নুন সাকিন বা তানবীন এর পর যদি আলিফ থাকে, খালি বা হরকত সহ যেকোন আলিফ, তাহলে গুন্নাহ হবে কি? বা তখন তানবীন বা নুন সাকিন এর উচ্চারন কেমন হবে?

reply

Admin

না গুন্নাহ হবে না। নুন সাকিন ও গুন্নাহের নিয়ম দেখুন।

reply

তাসনীম

গুন্না কত সেকেন্ড ধরে করতে হবে?

reply

Admin

১.৫ সেকেন্ডের মত। উদাহরণ দেখুন!

reply

মোকছেদুল

অাসসালামু অালাইকুম, অায়াতের শেষ দুই নুক্তাওয়ালা হা থাকলে কেন তা' এর উচ্চারণ হয়না? সে ক্ষেত্রে কিভাবে পড়ব?

reply

Admin

ওয়া আলাইকুমুস সালাম। দুই নোকতা ওয়ালা হা নয়, ওটা গোল তা, এতে থামলে হা হয়ে যায়। উদাহরণ দেখুন।

reply